নিটারে টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং করবেন যে ভাবে।

0
78

টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কি ??

এখনো অনেকেই আবার এই প্রজন্মের ই অনেকেই জানে না টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কি । এইতো গত বছর চাচাত বোনের বিয়েতে গেলাম । সেখানে বিয়াইন সাহেব জিজ্ঞেস করল , “কই পড়?” আমি নরমালি বললাম “নিটার এ” । উনি অবাক হয়ে জিজ্ঞাসা করল , “এটা কোথায়?” আমি বললাম , “এটা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এর প্রজুক্তি ইউনিটের একটি ইনস্টিটিউট । এখানে বি,এস,সি ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ান হয় । আর এটা সাভার নবীনগর এর একটু পরেই নয়ারহাট এর আগে একটা স্পিনিং মিলস আছে তার সাথেই অবস্থান ।” যাই হোক এরপরে তার প্রশ্ন টা স্বাভাবিক ই ছিল । কোন বিষয়ে পড়াশোনা করছি এই আর কি । আমিও বললাম টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং এ পড়ছি । এরপর তার রিএকশন ছিল মনে রাখার মত , খিক খিক করে হেসে দিয়ে বলল , “টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং !!! এটা তো আমার পলিটেকনিকেও আছে । এটা পড়তে কি ঢাকায় যাওয়া লাগে?” ও হা উনি পলিটেকনিক এ মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং এ পড়ছেন । যাই হোক আমার এই ছোট্ট অভিজ্ঞতা দিয়ে একটা উদাহরণ দিলাম কতটা অজ্ঞ বাংলাদেশ এর মানুষ টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং নিয়ে । তবে আমি হলফ করে বলতে পারি আপনি যদি টেক্সটাইল জগতের মানুষের সাথে চলাফেরা করেন তাহলে খুব ভাল করেই বুঝবেন টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কত বড় একটা সেক্টর বাংলাদেশে । আমার টেক্সটাইল জগতে চলাফেরা খুব বেশি না মাত্র দুই বছর । তাও দুই বছর ধরে শুধু পড়াশোনাই করছি । না কোন জব এর জগতে ঢুকেছি না টেক্সটাইল নিয়ে কোন কাজ করেছি ।

সত্যি কথা বলতে আমাকে টেক্সটাইল সম্বন্ধে খুব ভাল করে শিখিয়েছে নিটার ফ্যামিলি । এক অমায়িক ভালবাসায় ঘেরা নিটার ক্যাম্পাস । মাত্র পনের একর জায়গার উপরে গড়ে ওঠা এই নিটার ভুখন্ড শুধু আপনাকে টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কি এটাই জানাবে না । আপনার পরিপূর্ণ মানুষ হওয়ার সকল উপাদান এখানেই আছে । খুঁজে নিতে হয় , চাইলেই খুঁজে নিতে পারবেন এখানকার সুখ । আবার ভুল সুখ খুঁজতে গিয়ে অনেকেই হারিয়ে যায় , পথভ্রষ্ট হয় । আবার সেখান থেকে মার খেয়ে আবার নতুন করে পথ চলতেও শুরু করে । পথ চলা শুরু করলে আর তাকে থামাতে পারে না কোন কিছুই । ভ্রাতৃত্বের বন্ধন এর এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত আমাদের নিটার ফ্যামিলি । এখানে আছে বড় ভাই এর শাসন এ ঢাকা পড়া অনেক বড় শাস্তির অহরহ ঘটনা , ঠিক যেমন আমার নিকট ছোট ভাই এর করা অপরাধ আমার হাতেই শেষ হয় বা আমার হাতেই তার বড় শাস্তি ঢাকা পড়ে । একটা শান্তির নাম এই নিটার । যখন অনেকদিন পর ক্যাম্পাসে রিকশা নিয়ে ঢুকি মনে হয় বুক ভরে সতেজ নিঃশাস নিচ্ছি । এইত কিছুদিন আগে 17 dec 2018 , আমাদের ক্যাম্পাস থেকে পঞ্চম ব্যাচের সিনিয়র ভাই রা গ্রাজুয়েশন এর শেষ পরীক্ষা দিয়ে দিল । কিছুদিন পরেই ইন্টার্ন এর জন্য বিভিন্ন জায়গায় তাদের যেতে হবে । এই হল , এই করিডোর , এই ক্যান্টিন , এই মাঠ , ভাঙ্গা বাস , রানার বাংলো , গুইসাপ মোড় , ক্লাসরুম কোন কিছুতেই আর অবাধে চলাচল থাকবে না । মিস করতে হবে এই ক্যাম্পাস কে । আর এটাই স্বাভাবিক , কোন কিছু মিস না করলে সেখানে বেশিদিন থাকাও সম্ভব ছিল না । ভালবাসার নিটার কে এভাবেই মিস করবে প্রতিটা নিটারিয়ান । ভাল থাকুক এই ভালবাসা গুলো । ভাল থাকুক পঞ্চম ব্যাচের আমার সম্মানিত বড় ভাইরা । সময় পেলে চলে আসবেন এটা বলব না আপনাদের , কারণ ক্যাম্পাস নিটারিয়ান দের । আর আপনারাও নিটারিয়ান ।

Once a NITERian always a NITERian

উত্তর দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here