গৃহস্থালির কিছু টুকিটাকি টিপস পর্ব-২

0
39

গৃহস্থালির কিছু টুকিটাকি টিপস পর্ব

  • বাথরুমের টাইলস চকচকে করতে চাইলে ডিটারজেন্টের সঙ্গে লেবু আর ফিনাইল মিশিয়ে পরিষ্কার করুন, চকচক করবে টাইলস।
  • আয়নার চকচকে ভাব আনতে ভেজা আয়না শুকনো পত্রিকার পাতা দিয়ে হালকা করে ঘষে নিন। আবারো চকচক করবে আয়না।
  • কাঠের আসবাবে চকচকে ভাব আনতে চা-পাতার জুড়ি নেই। এক মুঠো চা-পাতা দিয়ে একটু কাপড়ের পুটলি বানিয়ে নিন। এবার কেরোসিনে ভিজিয়া তা দিয়ে ফার্নিচার পলিশ করে নিন। নতুনের মতোই চকচক করবে আসবাব।
  • পানিতে সামান্য কেরোসিন মিশিয়ে রান্নাঘর মুছলে মশা-মাছি ও পিঁপড়ের উৎপাত কমে যায়।
  • বর্ষাকালে টেবিল বা কেবিনেটের ড্রয়ার অনেক সময় আটকে যায়। স্বাচ্ছন্দে খোলা বা বন্ধ করার জন্য ড্রয়ারের ধারে মোম ঘষে রাখুন। সহজে আটকাবে না।
  • এলার্জির সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে কার্পেটের ক্ষেত্রে সপ্তাহে অন্তত একদিন রোদে দিয়ে তা ঝেড়ে নেওয়া উচিত।
  • ফুলদানিতে বেশ কিছুদিন ফুল রাখলে দাগ পরে যায়। এক মুঠো চাল, কয়েক ফোঁটা ডিশওয়াশিং লিকুইড এবং অর্ধেক পানি দিয়ে ভরে দিন ফুলদানিতে। এরপর এর মুখটা হাত দিয়ে বন্ধ করে ঝাঁকিয়ে নিন। ময়লা চলে যাবে কিছুক্ষণেই।
  • ইস্ত্রিতে অনেক সময় ময়লা বা পোড়া দাগ পরে যায়। একটা ট্রেসিং পেপারে কিছুটা লবণ ছিটিয়ে নিন এবং এর উপর দিয়ে গরম ইস্ত্রি চালিয়ে নিন। নিমিষেই ময়লা উঠে চলে যাবে।
  • কাঠের আসবাবপত্রে আঁচড়ের দাগ? একটি আখরোট দিয়ে দাগের উপর ঘষুন। দেখবেন দাগ হালকা হয়ে গেছে।
  • প্রতিদিন না পারলেও একদিন পর পর সবকিছু ঝেড়ে ফেলার চেষ্টা করুন। খুব ভালো হয় যদি একটি ভ্যাকুয়াম ক্লিনার থাকে। এটা আপনার পরম বন্ধু হয়ে উঠতে পারবে।
  • ছোট মাছে সহজে আঁশ ছাড়ানোর জন্য মাছের গায়ে অল্প আটা মাখিয়ে আঁশ ছাড়ান।
  • সবজির খোসা, চা-পাতা, মাছের নাড়িভুঁড়ি ইত্যাদি কিছুই ফেলে দেবেন না। এগুলো আপনার গাছের জন্য দারুণ সার।
  • খেজুরের গুড়ের পায়েস করতে গিয়ে দেখা যায় দুধ জমে যায় কিংবা ফেটে যায়, দুধের সঙ্গে মেশানোর আগে গুড় পানি দিয়ে জ্বাল দিয়ে ঠাণ্ডা করে তারপর মেশান। তাহলে দুধ জমে যাওয়ার কিংবা ফেটে যাওয়ার ভয় থাকবে না।
  • করোলা ভাজা খাওয়ার সময় একটু আচারের তেল দিয়ে খাবেন, তাহলে তেতোভাবটা কম লাগবে এবং খেতে সুস্বাদু হবে।
  • সব ধরনের আচারে একটু তেঁতুল মিশিয়ে নিন, তাহলে আচার দীর্ঘদিন সংরক্ষণ করে রাখা যাবে এবং আচারটা মজাদারও হবে।
  • মাছ নরম হয়ে গেলে ভাজার সময় একটু ময়দা কিংবা চালের গুঁড়া মাখিয়ে ভাজুন। মাছ সহজে ভেঙে যাবে না এবং মচমচে থাকবে।
  • রান্নার ১০ মিনিট আগে কিছুক্ষণ মাছ ভিনেগারে ভিজিয়ে রাখুন। আঁশটে গন্ধ চলে যাবে।
  • ফ্রিজের দুর্গন্ধ দূর করতে লেবু কেটে রেখে দিতে পারেন। গন্ধ চলে যাবে।
  • গরম ভাতের মধ্যে কালিজিরা কিংবা জিরার গোটা ছিটিয়ে ভাত পরিবেশন করতে পারেন। আলাদা স্বাদ পাবেন। এ ছাড়া লেবুর মতো জাম্বুরা ভর্তা ভাতের সঙ্গে খেতে পারেন। আপনার রসনায় ভিন্ন স্বাদ আনবে।
  • গরম ভাতে নারিকেলের দুধ মিশিয়ে পরিবেশন করুন। আলাদা স্বাদ পাবেন।
  • কোনো ভাজাভুজি করার সময় ময়দায় একটু লেবুর রস দিয়ে নেবেন। এতে ভাজাটা মচমচে হবে।
  • পাউরুটি, জিলাপি, কিংবা বসনিয়া পরোটা তৈরিতে ইস্ট লাগে। আপনি ইচ্ছা করলে বাসায় তৈরি করতে পারেন ইস্ট। ময়দা গুলে তিন দিন পচিয়ে রোদে শুকিয়ে নিন। পাটায় পিষে গুঁড়া করে রেখে দিন। যখন প্রয়োজন হবে এখান থেকে এক চিমটি দেবেন।

 

##### ভালো লাগলে কমেন্ট করে জানাবেন

 

উত্তর দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here